রামাদি নিয়ন্ত্রণে মরিয়া আইএস ট্যাঙ্ক মোতায়েন করেছে ইরাক

আমাদের নতুন সময় : 21/05/2015

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ইসলামিক স্টেটের সঙ্গে লড়াই করার প্রস্তুতি হিসেবে রামাদি শহরের চারপাশে মঙ্গলবার বিপুল পরিমাণ ট্যাঙ্ক ও কামান মোতায়েন করেছে ইরাকের নিরাপত্তা বাহিনী। অন্যদিকে শহরটি নিয়ন্ত্রণে রাখতে মরিয়া আইএস এবং তারা সেখানে নিজেদের অবস্থান সুদৃঢ় করার চেষ্টা করছে । রোববার রাতে ইরাকি সেনা এবং তাদের মিত্র মার্কিন বাহিনীর বিমান হামলা অগ্রাহ্য করে আনবার প্রদেশের রাজধানীটি দখল করে নেয় আইএস। বাংলামেইল এদিকে শহরটি উদ্ধারে ইরাকের উপজাতিদের দ্রুত প্রশিক্ষণ এবং আরো অস্ত্র দেয়ার বিষয়টি বিবেচনা করছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। আইএসের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য সোমবার রামাদি পৌঁছেছে ৩ হাজার শিয়া সেনা। তবে তারা এখনো শহরে প্রবেশ করেনি। শিয়া যোদ্ধারা রামাদির নিকটবর্তী হাব্বানিয়া ঘাঁটিতে যাত্রাবিরতি করেছে। আধুনিক অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত এসব যোদ্ধারা লড়াই করার জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত বলে জানিয়েছে রয়টার্স। এদিকে শহরটি পুনর্দখলে আইএস যোদ্ধাদের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য রামাদির বাসিন্দাদের পুলিশ ও সেনাবাহিনীতে যোগ দেয়ার জন্য চাপ দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ ওঠেছে। ওই জঙ্গিগোষ্ঠীটির সঙ্গে লড়াইরত সরকারি বাহিনীগুলোতে যোদ্ধা স্বল্পতার কারণে স্বেচ্ছাসেবক সংগ্রহ করার উদ্যোগ প্রয়োজনীয় হয়ে পড়েছে বলে মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে বলেছে ইরাকি মন্ত্রীসভা। হোয়াইট হাইস জানিয়েছে, ইরাকের বহুগোত্রীয় বাহিনী যখন রামাদি দখল করে থাকা আইএসর সঙ্গে স্থললড়াই করবে তখন তাদের সহায়তায় এগিয়ে আসবে মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোট। তারা তখন আইএসর অবস্থান লক্ষ্য করে বোমা হামলা চালাবে। যদিও আনবার যুদ্ধে শিয়া মিলিশিয়াদের মোতায়েনের ঘটনায় উদ্বিগ্ন যুক্তরাষ্ট্র। তাদের আশঙ্কা ইরাকের এই পদক্ষেপ দেশটিতে চলমান শিয়া-সুন্নি বিরোধকে আরো উস্কে দেবে। এদিকে রামাদি দখলে রাখার জন্য প্রস্তুত রয়েছে জিহাদিরাও। তারা শহরের প্রবেশমুখে স্থলমাইন মোতায়েনসহ নানা প্রতিরক্ষামূলক প্রস্তুতি নিয়েছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স। তারা শহরে শরিয়াহ আদালত প্রতিষ্ঠার প্রতিশ্র“তি দিয়েছে। এছাড়া রামাদির সন্ত্রাবাদ আটককেন্দ্র থেকে প্রায় একশ জনকে কারামুক্ত করেছে। সায়েদ হাম্মাদ আল দুলাইমি নামের এক স্কুলশিক্ষক রয়টার্সকে জানিয়েছেন, ‘জঙ্গি নেতারা লাউডস্পিকারে ওইসব ছেড়ে দেয়াদের ফিরিয়ে নিতে তাদের স্বজনদের রামাদির প্রধান মসজিদে জড়ো হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। এ ঘোষনার পর আমি বহু লোককে মসজিদের দিকে ছুটে যেতে দেখেছি।’ জিহাদিদের এ উদ্যোগ শহরবাসীর মধ্যে তাদের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি করেছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা আরো জানিয়েছেন, শহরের প্রধান প্রধান মসজিদ, সরকারি কার্যালয় এবং অন্যান্য বিখ্যাত ভবনগুলোতে উড়ছে আইএসর কালো পতাকা।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]