একটা জয় কি উপহার দিতে পারছেন মাশরাফিরা?

আমাদের নতুন সময় : 20/02/2019

আক্তারুজ্জামান : তাসমান সাগরের দ্বীপ থেকে হতাশাই আনতেই হচ্ছে মাশরাফিদের। ঘরের মাঠে শক্তিশালী খেতাব পাওয়া বাংলাদেশ দল নিউজিল্যান্ড সফরে যেন একেবারেই অচেনা। সেই টেইলর, সেই লাথাম, সেই বোল্ট কিংবা সেই উইলয়ামসনই এই দলে। যে দলকে বাংলাদেশ গত বছরের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে এবং তার আগে ত্রিদেশীয় সিরিজে হারিয়েছিল। কিন্তু এবার নিউজিল্যান্ড সফরে একেবারে পর্যুদস্ত সেই মুশফিক-রিয়াদরা।

তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম দুই ওয়ানডেতে কোনও প্রতিরোধ গড়তে পারেনি টাইগাররা। নেপিয়ার ও ক্রাইস্টচার্চের মাঠ থেকে লজ্জায় মুখ লুকিয়ে মাঠ ছেড়েছে তামিম ইকবালরা। যে মেহেদি মিরাজের ঘূর্ণিতে কুপোকাত হয়েছিল কিউইরা। তারাই এখন মিরাজকে বাউন্ডারি ছাড়া করছেন কোন রকম পরাস্ত হওয়া ছাড়াই।

তবে ভক্তমনের আশা দূর হচ্ছে না এখনই। সিরিজের শেষ ম্যাচের দিকে নজর রাখতে চাচ্ছেন অনেকেই। অনেকেরই আশা ঘুরে দাঁড়াবে মাশরাফি বাহিনী। নিউজিল্যান্ড সফরে অন্তত একটি জয় উপহার দিবে ভক্তদের। সেই আশা নিয়েই ভোরে মাঠে নেমে গেছেন মাশরাফিরা। যে উপহারের কথা লিখতে বসেছিলাম তার কিছু অংশ ইতিমধ্যে পাঠকরা জেনে গেছেন। হয়তো উপহারের দিকে এগোচ্ছে টাইগাররা। অথবা আরো একটি হতাশায় নিমজ্জিত হতে যাচ্ছে।

তামিমের কণ্ঠে ভালো শুরুর আশা, মাশরাফির চাওয়া অন্তত একটা জয় সব মিলিয়ে একটা জয় জরুরী বাংলাদেশের জন্য। তাছাড়া হোয়াইটওয়াশ হলেই যে আবার রেটিং পয়েন্ট কমে যাবে টাইগারদের। বিশ্বকাপ সামনে রেখে বিদেশের মাটিতে শেষ খেলা এটাই। যার ফলে প্রস্তুতির জন্য হলেও একটা জয় দরকার টাইগারদের।

লোগান পার্কের ডানেডিনে সিরিজের শেষ ম্যাচে মুস্তাফিজদের আরও একটি পরীক্ষা হবে। এই ম্যাচে যদি কিউইদের উইকেট না ফেলতে পারে সবচেয়ে বাজে বোলিংয়ের লজ্জায় নাম লেখাবে টাইগাররা। এই লজ্জা থেকে রেহাই পেতে অবশ্যই ভালো কিছু করতে চাইবে রুবেল-মাশরাফি ও মুস্তাফিজরা।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]