স্মরণকালের সবচেয়ে নিরুত্তাপ নির্বাচন আজ

আমাদের নতুন সময় : 28/02/2019

প্রভাষ আমিন : ২৭ ফেব্রুয়ারি বুধবার স্ত্রী মুক্তি শিকদারকে বললাম, কাজকর্ম যা আছে গুছিয়ে নাও। কাল (আজ বৃহস্পতিবার) কিন্তু সব বন্ধ, গাড়ি চলবে না। মুক্তি খুব অবাক হয়ে বললো, কেন? আমি বললাম, জানো না, কাল তো ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে মেয়র পদে উপ-নির্বাচন। শুনে মুক্তি খুবই অবাক হলো। তার অবাক হওয়ার কারণটা আমি বুঝতে পারছি। রাজনৈতিক পরিবারের মেয়ে মুক্তি বেশ রাজনীতি সচেতন। রাজনীতির খোঁজখবর রাখে। তার চেয়ে বড় কথা হলো, আমাদের বাসা মোহাম্মদপুরের ইকবাল রোডে, যেটি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে পড়েছে। আমার পেশার কারণেও বাসায় সব আপডেটেড তথ্য থাকে। রাজনীতির খোঁজখবর রাখুক আর না রাখুক, তার এলাকায় মেয়র নির্বাচন হচ্ছে, অথচ সে জানে না, এটাই মুক্তিকে অবাক করেছে।

অবশ্য মুক্তিকে দোষ দিয়ে লাভ নেই। গণমাধ্যমেও এই নির্বাচন প্রায় অনুপস্থিত ছিলো, উত্তাপ ছিলো না সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও। বাংলাদেশে নির্বাচন মানে যে উত্তাপ, উত্তেজনা, উৎসবের আমেজ; তার কিছুই নেই এবারের নির্বাচনে। প্রধান বিরোধী দলসহ অধিকাংশ রাজনৈতিক দল বর্জন করায় নির্বাচন হতে যাচ্ছে একতরফা। সবচেয়ে সুষ্ঠু নির্বাচন হলেও আওয়ামী লীগ মনোনীত আতিকুল ইসলামের মেয়র হওয়াটা সময়ের ব্যাপারমাত্র। আরো চারজন প্রার্থী আছেন বটে, তবে তাদের মধ্যে একজনের নামই লোকজন জানে। বাকি তিনজন একেবারে অচেনা। জাতীয় পার্টির প্রার্থী শাফিন আহমেদকে অবশ্য মানুষ রাজনীতিবিদ হিসেবে নয়, চেনে সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে।

কিছু হলেই আমরা বলি, স্মরণকালের বৃহত্তম, স্মরণকালের ভয়াবহ ইত্যাদি। ৭৯ সাল থেকে বাংলাদেশের নির্বাচন দেখে আসছি। অংশগ্রহণ, প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ, একতরফা, ভোটারবিহীন, প্রার্থীবিহীন, সুক্ষ্ম কারচুপি, আগের রাতে ভোট নেয়া- অনেকরকম নির্বাচন দেখেছি। কিন্তু এমন নিরুত্তাপ ও একতরফা নির্বাচন আর দেখিনি। খোদ রাজধানীতে নির্বাচন হচ্ছে, কিন্তু কোথাও কোনো আলোচনা নেই; এটাই অভূতপূর্বই বটে। বলাই যায়, স্মরণকালের সবচেয়ে নিরুত্তাপ নির্বাচন এটি। তবে উত্তর ও দক্ষিণ মিলিয়ে মোট ৩৬টি সাধারণ ওয়ার্ড এবং ১২টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডেও কাউন্সিলর পদে নির্বাচন হচ্ছে। সেখানেও যদি কিছুটা প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়, তাহলে নির্বাচনের মান বাঁচে।

নির্বাচন নিয়ে আলোচনা না থাকলেও ভোগান্তি আছে। ২৬ ফেব্রুয়ারি মধ্যরাত থেকে ১ মার্চ মধ্যরাত পর্যন্ত রাজধানীতে মোটর সাইকেল চালানো নিষিদ্ধ। অনেকে না জেনে মোটর সাইকেল নিয়ে বেরিয়ে বিপাকে পড়েছেন। আজ সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ থাকবে। আজ থাকবে সাধারণ ছুটি। তার মানে অকারণে একটি দিন হারিয়ে গেলো। তবে আজও যদি বৃষ্টি থাকে, সাধারণ মানুষ ছুটিটা উপভোগ করতে পারেন। সুযোগ থাকলে ঘুরে আসতে পারেন শেষ দিনের বইমেলা থেকেও।

যেভাবেই হোক, আতিকুল ইসলামই হতে যাচ্ছেন আনিসুল হকের উত্তরসুরী; এটা নিশ্চিত। তিনি তার নির্বাচনী অঙ্গীকারে বারবার আনিসুল হকের অসমাপ্ত কাজ শেষ করার কথা বলেছেন। এবার আমরা সেই অপেক্ষায় থাকছি। আনিসুল হক যে স্বপ্ন নগরবাসীকে দেখিয়েছেন, তা যেন দুঃস্বপ্নে পরিণত না হয়।

লেখক : হেড অব নিউজ, এটিএন নিউজ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]