জেলা জজ আদালতের লিফট ছিঁড়ে আহত ১২, তদন্ত কমিটি গঠন

আমাদের নতুন সময় : 08/03/2019

মামুন আহম্মেদ : রাজধানীর পুরান ঢাকার নি¤œ আদালতের জেলা জজ আদালতের পুরাতন বিল্ডিং এর লিফট ছিঁড়ে আইনজীবীসহ ১২ জন আহত হয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

লিফট ছিঁড়ে পড়ার ঘটনায় চার সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। ওই কমিটিকে আগামী সাত কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদনে জমা দিতে বলা হয়েছে। ঢাকার জেলা ও দায়রা জজ মো. হেলাল উদ্দিন চৌধুরী নেতৃত্বে এ কমিটি গঠন করা হয়।

কমিটির অপর সদস্যরা হলেন-  ১ম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রদীপ কুমার রায়, ১ম যুগ্ম  জেলা ও দায়রা  জজ উৎপল ভট্টাচার্য , সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাজী আশরাফুজ্জামান এবং গণপূর্ত অধিদপ্তরের কর্মকর্তা কাজী মাশফিক আহমেদ।

এদিকে লিফট ছিঁড়ে পড়ার ঘটনায় জেলা ও দায়রা জজের নাজির কোতোয়ালি থানায় একটি জিডি করেন। কোতয়ালী জোনের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার বদরুল হাসান জানান, আহতদের মধ্যে ৮ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। এরা হলেন- আইনজীবী মিঠু, সোহাগ, আইয়ুব আলী, সুলতান আহমেদ। আদালতের পেশকার সুমন, মহুরী আমিন, লিফটম্যান জাহাঙ্গীর আলম ও আসামি সুজন। আইনজীবী শামসুন্নাহার, আদালতে অফিস সহকারী জহিরুল এবং সাক্ষী আনজুমান আরাকে পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আর একজন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে  প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে চলে গেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ভ্যান্ডার আসাদুজ্জামান বলেন, সকাল ১০ টা ২০/১৫ মিনিট হবে। হঠাৎ একটি বিকট শব্দ শুনতে পায়। বোমা বিস্ফোরণ হলে যেমন শব্দ হয় ঠিক তেমনই শব্দ। ধোঁয়া বের হচ্ছে আর পুরো এলাকা অন্ধকারের মত হয়ে যায়। লিফটের ভেতর থেকে কান্না শোনা যাচ্ছিল। তৌহিদ নামের এক ব্যক্তি ভিতরে প্রবেশ করে। সে লিফটের দরজা খুলে। এসময় ভেতরের সবাই অনেকটা সেন্সলেস ছিল।

তিনি বলেন, আমরা ৪/৫ জন তাদের সেখান থেকে বের করি। এদের মধ্যে একটা ছেলে শুধু ভাল ছিল। অন্যরা ছিল রক্তাক্ত। তাদের কারো হাত, কারো মাথা কেটে গেছে। কারো বা হাত বা ভেঙ্গে গেছে। তাদেরকে ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এদের মধ্যে  লিফট ম্যান জাহাঙ্গীরের অবস্থা সবচেয়ে খারাপ ছিল বলে জানান তিনি।

আসাদুজ্জামান বলেন, রশিদ এন্টারপ্রাইজ নামের একটি প্রতিষ্ঠান মেইনট্যান্স করে। লিফটটা অনেক পুরনো। অনেক সময় বন্ধ থাকত। সম্পাদনা : ইকবাল খান

এদিকে আইজীবীরা বলছেন, প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ ওই লিফট দিয়ে পুরনো আদালত ভবনের চার তলা পর্যন্ত ওঠানামা করে। লিফটটি অনেক পুরনো, জরাজীর্ণ অবস্থায় ছিল। যার কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। জানা গেছে, লিফটি ১৯৮০ সালে তৈরি করা হয় এবং এটি ৮ জনকে বহন করার ধারণ ক্ষমতা । কিন্তু লিফটি যখন ছিঁড়ে পড়ে তখন সেখানে ১২ জন ছিল। ওভার লোডের কোন লাইট বা শব্দ লিফটে ছিল না। এটি হাঙ্গেরি তৈরি করে এবং এটি ছিল জরাজীর্ণ। সম্পাদনা : আলমগীর




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]