হার্টের রোগ ও ক্যান্সার সুরক্ষায় খান আনারস

আমাদের নতুন সময় : 08/03/2019

সুমন পাইক : শুরু হয়েছে আনারসের মৌসুম। বাজারে উঠতে শুরু করেছে সুস্বাদু ও পুষ্টিকর এ ফলটি। পুষ্টিগুণে আনারস অতুলনীয়। এর এ্যান্টি-অক্সিডেন্ট শরীরের কোষকে ক্ষয়ের হাত থেকে রক্ষা করে। ফলে হার্ট রোগ, বাত এবং বিভিন্ন ক্যান্সার থেকে সুরক্ষিত থাকা যায়।
এক গবেষণায় দেখোগেছে প্রতি ১০০ গ্রামে আনারসে ৫০ কিলোক্যালরি শক্তি রয়েছে। এতে ভিটামিন এ, বি, সি, ক্যালসিয়াম ও অন্যান্য পুষ্টি উপাদান রয়েছে। এর মধ্যে ০.৬ ভাগ প্রোটিন, ০.১২ গ্রাাম সহজপাচ্য ফ্যাট, ০.৫ গ্রাম খনিজ পদার্থ, ১৩.১২ গ্রাম শর্করা, ০.১১ গ্রাম ভিটামিন বি-১, ০.০৪ মি. গ্রাম ভিটামিন-২, ভিটামিন- সি ৪৭.৮ মিলিগ্রম, ক্যালসিয়াম ১৮ মিলিগ্রাম, ফসফরাস ০.০২ গ্রম, আঁশ ১.৪ গ্রম এবং ১.২ মিলি গ্রম লৌহ রয়েছে।

আনারস জ্বর ও জন্ডিস রোগের জন্য বেশ উপকারী। গবেষণায় দেখা গেছে, আনারস গলা ব্যথা, সাইনোসাইটিসজাতীয় অসুখগুলোর বিরুদ্ধে লড়াই করে। হজমে সাহায্য করে, শরীরের অন্য অঙ্গগুলোকেও ভালো রাখে। দীর্ঘদিনের কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে সহায়তা করে আনারস। আবার আনারস ক্ষুধাবর্ধক হিসেবে কাজ করে। আনারস খেলে ভালো থাকবে আপনার দাঁতের মাড়ি আর দাঁত। এর ক্যালসিয়াম দাঁতের জন্য উপকারী।

আনারস রক্ত পরিষ্কার করে হৃৎপিন্ডকে কাজ করতে সাহায্য করে। হৃৎপিন্ড আমাদের শরীরে অক্সিজেনযুক্ত রক্ত সরবরাহ করে। এছাড়াও হৃৎপিন্ডের নানা রকম অসুখে থেকে সুরক্ষা দেয় আনারস। এর মধ্যে থাকা ভিটামিন-সি ত্বকের অসুখ, জিহ্বা, তালু, দাঁত, মাড়ির যে কোনো অসুখের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে, দেহে রক্ত জমাট বাঁধতে বাধা দেয় ফলে শিরা-ধমনির দেয়ালে রক্ত না জমে শরীরে সঠিকভাবে রক্ত প্রবাহিত হয়ে রক্ত শোধনে ভূমিকা রাখে। প্রচুর পরিমাণ ম্যাঙ্গানিজ রয়েছে আনারসে। যা হাড় ও কানেক্টিভ টিস্যুকে শক্তিশালী করে। এক কাপ আনারসের জুস আমাদের দৈনিক প্রয়োজনীয় ম্যাঙ্গানিজের ৭৩ ভাগ পূরণ করতে সক্ষম। তবে এসিডিটি থাকলে খালিপেটে আনারস না খাওয়াই উচিৎ। সম্পাদনা : ওমর ফারুক




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]