সৌদি তেল ট্যাঙ্কার ও আরামকোতে হামলার জেরেই ইরাক থেকে দূতাবাস কর্মী প্রত্যাহার

আমাদের নতুন সময় : 17/05/2019

আব্দুর রাজ্জাক : ইরানের সঙ্গে উত্তেজনা বৃদ্ধির ফলেই বুধবার ইরাক থেকে জরুরি ভিত্তিতে দূতাবাস কর্মীদের হেলিকপ্টারে করে দেশে ফেরত নেয় যুক্তরাষ্ট্র। ইরানের দ্বারা প্রভাবিত কোনো জঙ্গি সংগঠন আরব আমিরাত উপকূলে সৌদি তেলবাহী জাহাজে হামলা ও  বৃহত্তম তেল কোম্পানি আরামকোতে ড্রোন আক্রমণ করে বলে যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বাস করে। রয়টার্স, মিডল ইস্ট মনিটর

তেলবাহী জাহাজে সোমবারের নাশকতার দায় স্বীকার করেনি কেউ, আবার মঙ্গলবার আরামকো’র দুটি শাখায় ড্রোন হামলা হয়েছে বলে রিয়াদ অভিযোগ করে। উদ্ভুত পরিস্থিতি ওয়াশিংটন ও তেহরানকে সংঘর্ষে জড়াতে উত্তেজনা সৃষ্টি করছে। একটি মার্কিন সরকারি সূত্র জানায়, হরমুজ প্রণালীর কাছে সৌদি, আমিরাত ও নরওয়ের তেলবাহী জাহাজে আক্রমণের ঘটনায় ইরানের মদদ রয়েছে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন। কিন্তু ইরানের মদদে হামলার কথা বলা হলেও এর সঙ্গে দেশটির সামরিক বাহিনীর সম্পৃক্ততা প্রতিষ্ঠিত করতে কোনো প্রমাণ যুক্তরাষ্ট্রের কাছে নেই। প্রসঙ্গত, তেলবাহী জাহাজে আক্রমণের ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে এই নাশকতা তদন্তের দাবিও জানায় ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়।

উল্লেখ্য, গতবছর ৮ মে ইরানের সঙ্গে ৬ জাতিগোষ্ঠীর স্বাক্ষরিত পরমাণু চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্র সরে যাওয়ার পর তেহরানের ওপর দফায় দফায় অর্থনৈতিক অবরোধ দেয়। এবং ওয়াশিংটন তেহরানের তেল রপ্তানিও শূন্যে নামানোর চেষ্টা করে যাচ্ছে। এরই মধ্যে ইরানের এলিট ফোর্স আইআরজিসি কে সন্ত্রাসী তালিকাভুক্ত করায় যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে উত্তেজনা চরমে পৌঁছায় যা উভয় রাষ্ট্রকে যুদ্ধপরিস্থিতির মুখোমুখি করেছে। সম্পাদনা : রাশিদ রিয়াজ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]