ঈদের কেনাকাটা, বসুন্ধরা শপিং মলে ‘দেশী দশে’ দশে দশ আয়োজন

আমাদের নতুন সময় : 22/05/2019

তাপসী রাবেয়া : রাজধানীর বসুন্ধরা শপিং শপিং মলের লেভেল-৭ এ নিজস্ব সংগ্রহ, পোষাকের আয়োজনে ভিন্নতা রেখে রঙ্গ বেরঙ্গের দেশীয় ঐতিহ্য-আধুনিকতা আর সংস্কৃতির মিশেলে পোষাকের পসরা বসিয়েছে ‘দেশী দশ’। একই ছাদের নীচে সাদাকালো, নগরদোলা, বাংলার মেলা, কে-ক্র্যাফট, নিপুণ, বিবিআনা, অঞ্জনস, দেশাল, রঙ বাংলাদেশ এবং সৃষ্টির শোরুম নিয়েই এ আয়োজন। প্রত্যেকটির হাউসের আছে নিজস্ব সংগ্রহ এবং আয়োজনের ভিন্নতা। সবাই নিজেদের নতুন নতুন কালেকশন(পোশাক) ক্রেতাদের জন্য সাজিয়ে রেখেছেন। আধুনিকতা আর দেশীয় ঐতিহ্যের সমারোহের কারনে ক্রেতারা একবার অবশ্যই ঢুকছেন এই চত্ত্বরে।

এক সমন্বয়কারী জানান, দেশী দশের সবগুলো শো রুমে এমন করে দাম নির্ধারণ করা হয় যাতে সব শ্রেনীর ক্রেতারাই  পচ্ছন্দ হলে কেনাকাটা করতে পারেন। তিনি বলেন, যদি ১০ জন ক্রেতাও দেশী দশের আসেন তার মধ্যে ৭ জনই কিছু না কিছু কিনে ফেরত যান।

দেশী দশ চত্ত্বরের শোরুম নিপুন, কে-ক্রাফট, সাদাকালো, বাংলার মেলায় আবার ফ্যামিলি প্যাকেজ পোষাক নিয়ে এসেছে। বাবা- ছেলে পাঞ্জাবী, মা- মেয়ে শাড়ি, সালোয়ার কামিজ। সঙ্গে আছে দাদা-দাদি, নানা-নানি ম্যাচিং পোষাক।

শোরুমগুলো ঘুরে দেখা গেছে এখানকার পোষাকের মধ্যে ছেলেদের ৭৫০ টাকা থেকে শুরু করে ১০,০০০ টাকা দামের পাঞ্চাবীও রয়েছে। বাচ্চাদের পাঞ্চাবীর দাম ধরা হয়েছে পোষাক ভেদে ৪৫০ থেকে ৪০০০ টাকা । আবার ২০০,  ৩০০ টাকার সুতি ফতুয়া পাওয়া যাচ্ছে। মেয়েদের শাড়ি ৮৫০ থেকে শুরু করে সর্বোচ্চো ৪২ হাজার টাকা দামের শাড়িও পাওয়া যাচ্ছে এই দেশী দশে।

দেশী দশে শপিং করত্ েআসা ক্রেতা আফসান ইয়াসনুর ও তার পরিবারের সদস্যরা এ প্রতিবেদককে বলেন, গত দশ বছর ধরে দেশী দশ থেকেই ঈদের কেনাকাটা করছেন তারা। সাধারণ সুতি কাপড় থেকে শুরু করে মসলিন, এন্ডি কটন, সিল্ক সব ধরনে কাপড়ই পাওয়া যায় এখানে।

সরকারী কর্মকর্তা হুমায়ন আফসার বলেন, একসঙ্গে দশটি দোকান। কমসময়ে এখানে ভিন্ন ভিন্ন  জিনিষ সহজেই কেনা যায়। লুঙ্গি থেকে শুরু করে স্যান্ডেলও কিনতে পাওয়া যায় এখানে।

বিক্রয় কর্মীরা বলেন, সারা বছর ক্রেতা থাকলেও রোজায় দেশী দশ অন্যরকম ব্যস্ত হয়ে পড়ে। প্রতিটা শোরুমেই কেনাবেচা খুবই ভালো থাকে। কোনো রকমে ইফতার শেষ করতে হয় তাদের।  দেশী দশের আয়োজকরা বলেন, ঋতু অনুযায়ী বছরের শুরু থেকে প্রতিটি শো রুম নিজেদের কাস্টমারদের জন্য নতুন নতুন ডিজাইন আর দেশীয় তাতের পোষাক নিয়ে গবেষণা শুরু করেন। সম্পাদনা : ইকবাল খান

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]