দেশে চতুর্থদফা সাড়ে ১২ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের রেকর্ড

আমাদের নতুন সময় : 23/05/2019

শাহীন চৌধুরী : দেশে ১২ হাজার ৫৩৯ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনে চতুর্থদফা রেকর্ড সৃষ্টি হয়েছে মঙ্গলবার রাত ৯টায়। এ জন্য সর্বোচ্চ পরিমাণ গ্যাস সরবরাহ করতে হয়েছে এবং একইসঙ্গে তেলচালিত সব কেন্দ্র চালু রাখতে হয়েছে। বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড-বিপিডিবি’র পরিচালক সাইফুল হাসান চৌধুরী এই তথ্য জানিয়েছেন। বিপিডিবি জানায়, মঙ্গলবার রাতে দেশে যত মেগাওয়াট বিদ্যুতের চাহিদা ছিল, তত মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদিত হয়েছে। এ জন্য কোথাও কোনও লোডশেডিং হয়নি। এর আগে দেশে ২৪ এপ্রিল উৎপাদিত হয়েছিল ১২ হাজার ৫৭ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ। গত ৭ মে ওই রেকর্ড ভঙ্গ করে দেশে ১২ হাজার ২১৪ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদিত হয়েছে। তৃতীয় দফায় ওই রেকর্ড ছাড়িয়ে দেশে ১২ হাজার ৪১২ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের নতুন রেকর্ড সৃষ্টি হয়।

সূত্র জানায়, দেশে বিদ্যুতের কোনো ঘাটতি নেই। বিপিডিবি সারাদেশে বিদ্যুতের ঘাটতি জিরো লেভেলে নামিয়ে আনতে বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজিয়েছে। এ প্রসঙ্গে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, বিদ্যুতের বর্তমান চাহিদা মেটাতে আমরা সক্ষম। বিদ্যুৎ গ্রাহকদের চাহিদা মেটাতে দিনের পিক আওয়ারে আমাদের সক্ষমতা অনুযায়ী বিদ্যুতের সর্বোচ্চ উৎপাদন করছি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, নির্মাণাধীন কয়েকটি প্রকল্পে আগামী কয়েক মাসের মধ্যে উৎপাদন শুরু হলে বিদ্যুৎ পরিস্থিতি আরও স্থিতিশীল হবে। শেখ হাসিনার বর্তমান সরকার বিদ্যুতের উৎপাদন ২৪ হাজার মেগাওয়াট করে ২০২১ সালের মধ্যে প্রতিটি ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে।

বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, বর্তমান সরকার ২০৪১ সালের মধ্যে দেশে ৬০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। ২০২০ থেকে ২০২৬ সালের মধ্যে ৫৩ টি বিদ্যুৎ কেন্দ্র উৎপাদনে যাবে। সরকার নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করতে বিদ্যুৎ সঞ্চালন ও বিতরণ লাইন সম্প্রসারণের কাজও শুরু করেছে। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]