ফুলেল শ্রদ্ধায় হলি আর্টিজানে নিহতদের স্মরণ 

আমাদের নতুন সময় : 01/07/2019

সুজন কৈরী : হলি আর্টিজান বেকারিতে ভয়াবহ জঙ্গি হামলায় নিহতদের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় স্মরণ করেছেন দেশি-বিদেশি নাগরিক, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন ও আইন-শৃক্সক্ষলা বাহিনী। জঙ্গি হামলার তিন বছর পূর্তি উপলক্ষে সোমবার সকাল ১০টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত গুলশান-২ নম্বর  সেকশনের ৭৯ নম্বর সড়কের ৫ নম্বরস্থ হলি আর্টিজান বেকারির ওই ভবনটি শ্রদ্ধা জানানোর জন্য খুলে দেওয়া হয়।

সকাল সাড়ে ১০টায় র‌্যাব মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।এর আগে সোয়া ১০টায় ডিএমপির পক্ষ থেকে ভারপ্রাপ্ত কমিশনার ও সিটিটিসি প্রধান মনিরুল ইসলাম ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

এদিকে সকাল ১০টার আগেই হলি আর্টিজানে নিহতদের স্মরণে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সেলিমা রহমানের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল। সেলিমা রহমান বলেন, হলি আর্টিজান হামলার পর সরকার কিছুটা হলেও সফল হয়েছে। কিন্তু সামগ্রিক সন্ত্রাসবাদ দমনে ব্যর্থ হয়েছে।

১৯৮২ সাল থেকে বাংলাদেশে থেকে ছিন্নমূল মানুষদের নিয়ে কাজ করা ইতালিয়ান নাগরিক ফাদার রিকার্দো তোবানিল্লি হলি আর্টিজানে নিহতদের স্মরণে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি বলেন, বাংলাদেশের মানুষ খুবই শান্তিপ্রিয়। অল্প কিছু মানুষ অসুবিধা করছে। এজন্য কিছু চিন্তা আছে, সতর্কতাও আছে। তবে ভয়ের কারণ নেই। আমরা নিরাপদেই আছি। রিকার্দো জানান, নিহত ৯ ইতালিয়ান নাগরিকের মধ্যে ছয়জনই তার পরিচিত ছিল। ঘটনার দুদিন আগেও ক্রিস্টিয়ানার সঙ্গে তার কথা হয়েছিল। কিন্ত তিনি ভাবতেই পারেননি দুদিন পরেই তার এমন মৃত্যু হবে।

আনেজি বারেলো নামে আরেক ইতালিয়ান নাগরিক বলেন, হলি আর্টিজানের এই একটি ঘটনা বাংলাদেশকে জঙ্গিবাদ রাষ্ট্র হিসেবে প্রমাণ করে না। বাংলাদেশের মানুষ অনেক শান্তিপ্রিয়। এসব পছন্দ করেন না। একটি ছোট গ্রুপ এ কাজ করেছে। সেই রাতের ঘটনা মনে করে তিনি বলেন, আমি সেদিন ইতালিয়ান অ্যাস্বাসেডরের বাসায় ডিনার করছিলাম। হঠাৎ খবর পেয়ে খুব উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যে ছিলাম। আমার পরিচিত বন্ধুরা হলি আর্টিজান বেকারিতে ছিল। বন্ধু ক্লাউডিয়ার সঙ্গে কথা হয় ভোর ৪ টায়। সে অনেক কষ্টে বেঁচে গিয়েছিল। সে ইতালি ফিরে গেলেও আবার বাংলাদেশে এসেছে। সে এখনো বাংলাদেশেই কাজ করে। আমরা বাংলাদেশকে ভালোবাসি। সম্পাদনা:সমর চক্রবর্তী

 

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]