• প্রচ্ছদ » » উন্নয়নের সঙ্গে সুশাসন খুব জরুরি, না হলে উন্নয়ন লুটেরারা লুট করে খায়, বৈষম্য হয় আকাশচুম্বী


উন্নয়নের সঙ্গে সুশাসন খুব জরুরি, না হলে উন্নয়ন লুটেরারা লুট করে খায়, বৈষম্য হয় আকাশচুম্বী

আমাদের নতুন সময় : 26/07/2021

খাজা নিজাম উদ্দিন : গত ৫ বছরের মধ্যে এ বছর বাংলাদেশে সর্বনি¤œ কোরবানি হয়েছে। এর মধ্যে গরু কোরবানি হয়েছে বেশ কম (গরু ৪০ লাখ, আর ছাগল/ভেড়া ৫১ লাখ)। প্রবাসী টাকা পাঠাচ্ছে ভালো। না হলে অর্থনীতির কী অবস্থা হতো আল্লাহ ভালো জানেন। গত দুই বছরে দেশের চাকরির বাজারে মন্দা চলছে। সরকারও বলেই যাচ্ছে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ কর্মসংস্থান বাড়ানো, কিন্তু দেশের কর্মবাজার গত দুই বছর থেমে আছে কিংবা সংকুচিত হয়েছে। বড় বড় মেগাপ্রজেক্ট প্রায় শেষের দিকে। তার মানে বিশাল টাকার প্রবাহ আস্তে আস্তে কমছে। আবার মেগাপ্রজেক্ট থেকে সুফল পাওয়ার জন্য গত ১২ বছরে সমতালে যে দক্ষ জনশক্তি দরকার ছিলো, তার তেমন কিছুই হয়নি। দক্ষ জনশক্তির প্রবল সংকটে বাংলাদেশ। সরকারের কাছের লোকেরাও বলছেন, পাবলিক ভার্সিটি থেকে যারা বের হচ্ছেন, ৯৮ শতাংশ কর্মসংস্থানের যোগানদার বেসরকারি খাত তাদের ৯০ শতাংশের বেশিকে উপযুক্ত মনে করছে না। ভারতে ‘পেগাসাস’ সফটওয়্যার দিয়ে মোবাইলে ফোনে আড়িপাতা নিয়ে মোটামুটি যুদ্ধ চলছে। বিরোধী দল তুমুল চাপ সৃষ্টি করছে সংসদে এবং সংসদের বাইরে। এদিকে বাংলাদেশে বুদ্ধিজীবী নামধারী হাড্ডিজীবীদের এ নিয়ে কোনো আওয়াজ নেই। যেসব সরকার পেগাসাস সফটওয়্যার কিনেছে ইজরায়েল থেকে, তাদের মধ্যে বাংলাদেশও আছে তালিকায়, এমনটি রিপোর্ট এসেছে।
এদিকে ৫ লাখ টাকা, ২০ লাখ টাকা, ৩০ লাখ টাকা এমন করে জনপ্রতি টাকা নিয়ে লাখ লাখ মানুষের পণ্য দিচ্ছে না একটা কোম্পানি। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া দূরের কথা, তাদের বাচানোর জন্য ধীরে চলো নীতি চলছে। মাত্র ৫০ হাজার টাকার ক্যাপিটাল দিয়ে ব্যবসায় নেমে দেড়-দুই বছরে পাবলিক থেকে কতো হাজার কোটি তুলেছে তার হিসাব বাণিজ্য মন্ত্রণালয় বলতে পারছে না। দুদক বলেছে, সব হিসাব এখনো পাওয়া যায়নি। এই হাজার হাজার কোটি নিয়ে লাখ লাখ গ্রাহককে পণ্য দেওয়ার নামে মাসের পর মাস ঝুলিয়ে রেখে ফেসবুকে বার্তা দিয়েই যাচ্ছে। দুনিয়ার কোনো দেশে এভাবে পাবলিকের কাছ থেকে টাকা তুলে পণ্য না দিয়ে ফেসবুকে মেসেজ দেওয়ার আর নজির আছে বলে মনে হয় না। আরেকজনকে ধরা হয়েছে যে, মাত্র কয়েক মাসের মধ্যে ৬০০ কোটি তুলে পণ্য দিচ্ছে না। কথা হচ্ছে- এই যে হাজার কোটি বা শত শত কোটি টাকা তুলে পণ্য না দিয়ে তারা মুক্তভাবে ঘুরে বেড়াচ্ছে, এটা কীভাবে সম্ভব? দেশে অবকাঠামোগত উন্নয়ন করতে গিয়ে অনেকে জায়গায় নজর দেওয়া যায়নি? চারপাশে হেলেন, সাবরিনা, সাহেদ, পাপিয়াদের ছড়াছড়ি। টাকার নেশা একটা বড় অংশকে যেন জম্বি বানিয়ে দিয়েছে। দুটো ছেলেকে দেখলাম দিন দুপুরে একটা মানুষকে কুপিয়ে মেরে ফেললো। তাদের ক্রশফায়ার দেওয়া হলো, অথচ মূল আসামি ভ‚মিদস্যুর গায়ে একটা আচরও পড়লো না। একটা বিষয় খুব পরিষ্কার- দুর্নীতিবাজরা, অশুভরা সংঘবদ্ধ। তাদের সঙ্গে সরকার কি পারবে? আবার দুর্নীতি, লুটপাট সরকারের কারও না কারও সাপোর্ট ছাড়া কি চলতে পারে? উন্নয়নের সঙ্গে সুশাসন খুব জরুরি। না হলে উন্নয়ন লুটেরারা লুট করে খায়, বৈষম্য হয় আকাশচুম্বী। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]