• প্রচ্ছদ » আমাদের বাংলাদেশ » [১]বঙ্গবন্ধু ভাষণের দিনকে টানা তৃতীয়বারের মতো বাংলাদেশি ইমিগ্র্যান্ট ডে ঘোষণা করলো নিউইয়র্ক স্টেট সিনেট


[১]বঙ্গবন্ধু ভাষণের দিনকে টানা তৃতীয়বারের মতো বাংলাদেশি ইমিগ্র্যান্ট ডে ঘোষণা করলো নিউইয়র্ক স্টেট সিনেট

আমাদের নতুন সময় : 18/09/2021

সাকিবুল আলম:[২] হাজার বছরের শ্রেষ্ট বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জাতিসংঘে ১৯৭৪ সালের ২৫ সেপ্টেম্বরে দেওয়া ভাষণটিকে স্মরণীয় করে রাখতে এ সিদ্ধান্ত নিউইয়র্ক স্টেট সিনেট। বাসস
[৩] টানা তৃতীয়বারের মতো পুরো বাঙালি জাতির জন্য বিরল এ সম্মান বয়ে আনলেন স্বাধীন বাংলাদেশের রুপকার। যুক্তরাষ্ট্রের মুক্তধারা ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত সাহা শুক্রবার জানিয়েছেন, নিউইয়র্ক স্টেট সিনেটে এ বিল পাশের মাধ্যমে,জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনে মুক্তধারার কর্মকাণ্ডের মধ্যে আরো একটি পালক যুক্ত হলো।[৪] চলতি বছরের ২১ জানুয়ারি নিউইয়র্ক স্টেটের আইন পরিষদে বিলটি উথাপন করা হয়। ২৬ জানুয়ারি বিলটি সর্বসম্মতভাবে পাশ হয়। [৫] ১৯৭৪ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর প্রথম এশিয় নেতা হিসেবে জাতিসংঘের অধিবেশনে সবার আগে বক্তৃতা দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু। [৬] সেবছর বঙ্হবন্ধু বাংলায় বক্তৃতা দেন। তিনি ছিলেন প্রথম বাঙালি যিনি সাধারণ পরিষদে বত্তৃতা দিয়েছিলেন। এই বিশ্ব আসরে সেবারই প্রথম বাংলা উচ্চারিত হয়েছিলো। [৭] বঙ্গবন্ধুকে প্রথমেই অনুরোধ করা হয়েছিল, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি ইংরেজিতে বক্তৃতা করবেন।’ কিন্তু প্রিয় মাতৃভাষা বাংলার প্রতি সুগভীর দরদ ও মমত্ববোধ থেকে বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, ‘আমি মাতৃভাষা বাংলায় বক্তৃতা করতে চাই।’ জাতিসংঘে বাংলাদেশের সদস্যপদ লাভের আট দিনের মাথায় বঙ্গবন্ধু সাধু বাংলায় জাতিসংঘে দেওয়া ভাষণের শুরুতেই বলেন, ‘মাননীয় সভাপতি, আজ এই মহামহিমান্বিত সমাবেশে দাঁড়াইয়া আপনাদের সাথে আমি এই জন্য পরিপূর্ণ সন্তুষ্টির ভাগীদার যে, বাংলাদেশের সাড়ে সাত কোটি মানুষ আজ এই পরিষদে প্রতিনিধিত্ব করিতেছেন। আত্মনিয়ন্ত্রণাধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামের পূর্ণতা চিহ্নিত করিয়া বাঙালি জাতির জন্য ইহা একটি ঐতিহাসিক মুহূর্ত।’ সম্পাদনা: আসিফুজ্জামান পৃথিল




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]