• প্রচ্ছদ » » কানাডার নির্বাচনে আবারও প্রধানমন্ত্রী ট্রুডো : দুই বছর এক্সট্রা ক্ষমতা!


কানাডার নির্বাচনে আবারও প্রধানমন্ত্রী ট্রুডো : দুই বছর এক্সট্রা ক্ষমতা!

আমাদের নতুন সময় : 22/09/2021

শামীম আহমেদ : ভোটগ্রহণ শেষ হবার সাড়ে ৩ ঘণ্টার মধ্যে কানাডার মধ্যবর্তী নির্বাচনের আনঅফিসিয়াল ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে। বর্তমান ক্ষমতায় থাকা লিবারেল পার্টি আবারও মাইনরিটি সরকার হিসেবে ক্ষমতায় আসল। ২০১৯ সালের নির্বাচনেও তারা মাইনরিটি হিসেবে সরকার গঠন করেছিলো। জাস্টিন ট্রুডো আবারও প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হলেন। কানাডিয়ানরা মহামারির মধ্যে ৫০০ মিলিয়ন ডলার খরচ করে মধ্যবর্তী নির্বাচনের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলছিলেন। অনেকেই বলছিলেন ট্রুডো চাইছিলেন ভ্যাকসিনের সফলতা কাজে লাগিয়ে মেজরিটি সরকার গঠন করতে। কিন্তু আমার তা কখনও মনে হয়নি। আসলে মহামারির কারণে ২০২৪ এ কানাডার অর্থনীতি ভঙ্গুর হতে পারে। ওই সময়ে তাই বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ট্রুডো দলকে পরাজয়ের সম্মুখীন করতে চাননি। এছাড়া তিনি চাচ্ছিলেন আরও কিছুদিন ক্ষমতায় থাকতে কিন্তু সেটি ২০২৪ এর নির্বাচনে জিতে হয়ত সম্ভব নয়। তাই তার দল লিবারেল পার্টি আগের চাইতে বেশি আসন পাবে না জেনেও শুধু ২ বছর এক্সট্রা ক্ষমতায় থেকে ২০২৬ সালে অর্থনীতিকে চাঙ্গা করে এখনকার ডেপুটি প্রাইম মিনিস্টার ক্রিস্টিয়া ফ্রিল্যান্ডকে নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে জিতিয়ে বিজয়ী নেতা হিসেবে বিদায় নেয়ার উদ্দেশ্যেই এই মধ্যবর্তী ইলেকসান দেন ট্রুডো। ট্রুডোর দল লিবারেল পার্টি ২০১৯ এ আসন পেয়েছিলো ১৫৯টি, এবার পেলো ১৫৬টি। তাদের আসন কমেছে ৩ টি। বিরোধী দল অর্থাৎ কনজারভেটিভ পার্টি ২০১৯ এ পেয়েছিলো ১২১টি আসন, এবার পেলো ১২২টি। অর্থাৎ তাদের আসন বেড়েছে ১টি। টিকটক নেতা জাগমিত সিং এর দল এনডিপির পেয়েছে ২৯টি আসন, যা ২০১৯ এর চাইতে ৫টি বেশি। গ্রীন পার্টি ২০১৯ এ পেয়েছিলো ৩টি আসন, এবার পেয়েছে ২ টি আসন। কুইবেক ভিত্তিক ফ্রেঞ্চ জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী দল বিকিউ ২০১৯ এ পেয়েছিলো ৩২টি আসন, এবার পেয়েছে ২৯টি আসন (চ‚ড়ান্ত অফিশিয়াল রেজাল্টে আসন ২-৩টা এদিক ওদিক হতে পারে)। দেখা যাচ্ছে বিরোধী দল কনজারভেটিভ ও এনডিপির আসনই শুধু বেড়েছে। এমনকি ভোটের দিক দেয়েও বিজয়ী ট্রুডোর দলের চাইতে পরাজিত কনজার্ভেটিভরা এক শতাংশ বেশি ভোট, ৩৪ শতাংশ ভোট পেয়েছে। ট্রুডো খুবই বাজে সরকার চালাচ্ছেন কানাডায়। কানাডার উন্নয়নের সূচক সবই খারাপ গত কয়েকবছর ধরে। কিন্তু ট্রুডোর বাবা মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশকে সমর্থন করেছিলো, ট্রুডো শেখ হাসিনার বন্ধু এবং ট্রুডো ইমিগ্রেন্ট ও আমার মতো বিদেশী বান্ধব – এই বিবেচনায় সে জেতায় খুশি হয়েছি। আমার জন্মদিনে এটা ট্রুডোর একটা ভালো উপহার। আমার জন্মদিন উপলক্ষে একটা ৫০০ মিলিয়ন ডলারের নির্বাচন করে নিজের ক্ষমতায় টেকার মেয়াদ দুইবছর বাড়ানোয় তাকে অভিনন্দন জানাই। লেখক : জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]