• প্রচ্ছদ » আমাদের বাংলাদেশ » [১]ঢাকায় সাড়ে তিন হাজার মাদকব্যবসায়ী, জানালো মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর [২]খুচরা বিক্রেতা ও মাদকসেবীদের আলাদা তালিকা হয়েছে


[১]ঢাকায় সাড়ে তিন হাজার মাদকব্যবসায়ী, জানালো মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর [২]খুচরা বিক্রেতা ও মাদকসেবীদের আলাদা তালিকা হয়েছে

আমাদের নতুন সময় : 25/09/2021

মাসুদ আলম: [৩] মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের (ডিএনসি) অতিরিক্ত পরিচালক ফজলুর রহমান শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে বলেন, তালিকাভূক্ত সব মাদক ব্যবসায়ীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে। এদের কেউ সরাসরি এই কাজে জড়িত, কেউ পৃষ্ঠপোষক, আবার কেউ বিনিয়োগকারী। [৪] তিনি জানান, রাজধানীর গুলশান, ভাটারা, কুড়িল ও রমনা এলাকায় অভিযান চালিয়ে কোটি টাকা মূল্যের ৫৬০ গ্রাম আইস ও ১২০০ ইয়াবাসহ পাঁচ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে ডিএনসি ঢাকা মেট্রো উত্তর। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- জাকারিয়া আহমেদ অমন, তারেক আহম্মেদ, সাদ্দাম হোসেন, শহিদুল ইসলাম খান ও জসিম উদ্দিন। তারা স্বচ্ছল পরিবারের সন্তান। [৫] অতিরিক্ত পরিচালক বলেন, স্বচ্ছল পরিবারের ছেলেমেয়েরাই মাদকের সঙ্গে জড়িত হয়। জব্দ করা আইস এখন পর্যন্ত ঢাকায় আটক হওয়া আইসের সবচেয়ে বড় চালান। আইস দেশে তৈরি হওয়ার সুযোগ নেই, এই মাদক মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে আসছে। [৬] ফজলুর রহমান বলেন, অধিদফতর চেষ্টা করছে মাদকের গড ফাদারদের আইনের আওতায় নিয়ে আসার। অনেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতার কারণে ব্যবসা ছেড়ে দিলেও এখন পৃষ্ঠপোষকতা করছেন। [৭] তিনি বলেন, মাদকসেবী বা কারবারিকে আইনের আওতায় আনতে হলে তার কাছে থাকা মাদকদ্রব্য জব্দ করতে হয়। কিন্তুমাদক থাকে খুচরা কারবারিদের কাছে। এ কারণে গড ফাদারদের আইনের আওতায় নিয়ে আসা বা গ্রেপ্তার করা কঠিন হয়ে যায়। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]