• প্রচ্ছদ » » মানিক মিয়ার দুই ছেলে এখন দুই কক্ষপথে!


মানিক মিয়ার দুই ছেলে এখন দুই কক্ষপথে!

আমাদের নতুন সময় : 13/10/2021

সাকিব এ চৌধুরী : ইত্তেফাকের তোফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া। যিনি মানিক মিয়া নামেই অধিক পরিচিত। সরাসরি রাজনীতি না করেও সাংবাদিক মানিক মিয়া হয়ে ওঠেছিলেন একজন রাজনীতিক। শেখ মুজিবুর রহমানের অসমাপ্ত আত্মজীবনী ও কারাগারের রোচনামচা বইটিতে পাওয়া যায় কীভাবে একজন মানিক মিয়া শেখ মুজিব ও আওয়ামী লীগকে বুদ্ধি পরামর্শ দিয়ে গেছেন। ১৯৬৯ সালে মৃত্যুবরণ করা মানিক মিয়া মৃত্যুর আগ পর্যন্ত আওয়ামী লীগের সঙ্গে নানাভাবে জড়িয়ে ছিলেন। বর্তমানে মানিক মিয়া না থাকলেও রাজনীতি ও সংবাদপত্র জগতে রয়েছেন মানিক মিয়ার দুই ছেলে। তবে তারাও কেউই এখন আর সরাসরি আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে নেই। মানিক মিয়ার বড় ছেলে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর সরকারের সংসদ সদস্য ছিলেন। সে সময় বাকশাল গঠন হলে আওয়ামী লীগের সাংসদ হয়েও তিনি বাকশালে যোগ দেননি বরং পদত্যাগ করেছিলেন। পরবর্তীতে ওয়ান ইলেভেন সরকার আমলে সে সরকারের আইন উপদেষ্টার দায়িত্ব পালন করেন। সর্বশেষ ২০১৮ সালে জাতীয় নিবার্চনকে কেন্দ্র করে তৎপর হয়ে ওঠেন তিনি। বিএনপির সঙ্গে গড়ে ওঠা ড. কামাল হোসেনের জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠন নিয়ে বিশেষ ভূমিকা পালন করেছিলেন এবং সে সময় টকশোতে ঘটা একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে গ্রেপ্তার হয়ে কারাবরণ করেন এই সরকারের আমলে। জেল থেকে মুক্তি পেয়েও সেভাবে রাজনীতি সক্রিয় না হলেও কলাম লেখায় তিনি এখন আ’লীগের বড় একজন সমালোচক।
মানিক মিয়ার আরেক ছেলে আনোয়ার হোসেন মঞ্জু জাতীয় পার্টির একটি অংশের (জেপি) চেয়ারম্যান হয়ে এখন আওয়ামী লীগের সরকারের জোটসঙ্গী। পিরোজপুর-২ আসন থেকে ৭ বার সাংসদ নিবার্চিত হওয়া মঞ্জু ছিলেন বিএনপির প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্যও। আওয়ামী লীগের গত সরকারের পানিসম্পদ মন্ত্রীসহ এর আগেও বিভিন্ন সময়ের মোট ৫ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ছিলেন আনোয়ার হোসেন মঞ্জু। দুই ভাই-ই বর্তমানে জড়িত রয়েছেন সংবাদপত্রের সঙ্গে। আনোয়ার হোসেন মঞ্জু বর্তমানে ইত্তেফাক গ্রুপের চেয়ারম্যান অন্যদিকে ইংরেজি দৈনিক নিউ নেশনের প্রকাশক। ইত্তেফাকের সম্পাদনায়ও দুই ভাইও জড়িত ছিলেন বিভিন্ন সময়ে। তবে ইত্তেফাক নিয়ে দুই ভাই বিরোধেও জড়িয়ে পড়েন একসময়। দীর্ঘ বিরোধের পর ২০১০ সালে ‘পারিবারিক সমঝোতায়’ ইত্তেফাক পত্রিকার মালিকানা পান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এবং ইত্তেফাক ভবনের মালিকানা পান ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন। উল্লেখ্য, ইত্তেফাকের সম্পাদক হিসেবে রয়েছেন মঞ্জুর স্ত্রী তাসমিমা হোসেন এবং প্রকাশকের দায়িত্বে রয়েছেন মঞ্জুর মেয়ে ও ফরিদপুরের আলোচিত সাংসদ নিক্সন চৌধুরীর স্ত্রী তারিন হোসেন। ঝধশরন অ ঈযড়ফিযঁৎু-র ফেসবুক ওয়ালে লেখাটি পড়ুন।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]