• প্রচ্ছদ » » [১]বিলাসবহুল ১১৩টি গাড়ি বার বার নিলামে তুলেও বিক্রি করতে পারছে না চট্টগ্রাম কাস্টমস


[১]বিলাসবহুল ১১৩টি গাড়ি বার বার নিলামে তুলেও বিক্রি করতে পারছে না চট্টগ্রাম কাস্টমস

আমাদের নতুন সময় : 16/10/2021

রিয়াজুর রহমান: [২] জানা গেছে, এসব বিলাসবহুল গাড়িগুলো পরপর চার বার নিলামে তুলেও বিক্রি না হওয়ায় বর্তমানে বন্দরের ইয়ার্ডে স্তুপ পড়েছে। তাই ইয়ার্ড খালি করতে আগামী ৩ ও ৪ নভেম্বর ফের নিলামে উঠছে এসব গাড়ি। [৩] চট্টগ্রাম কাস্টমস সূত্রে জানা যায়, এবারের নিলামে ২৬টি মিতশুবিশি, ২৫টি মার্সিডিজ বেঞ্চ , ২৫টি বিএমডবি�উ, ৭টি ল্যান্ডরোভার, ৭টি ল্যান্ডক্রুজার, ১টি সিআরভি, ৬টি লেক্সস, ৫টি ফোর্ড, ৩টি জাগুয়ার, ১টি দাইয়ু ও ১টি হোন্ডাসহ বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ১১৩টি গাড়ি রয়েছে। এসব গাড়ির বাজার মূল্য ১ কোটি থেকে ৩ কোটি টাকা। তবে পুরাতন হওয়ায় অনেকটা কম দামেই কেনা যাবে এসব গাড়ি। [৪] বিলাসবহুল এসব গাড়ি কিনতে আগ্রহী বিডাররা চট্টগ্রামসহ ঢাকা, সিলেট ও মোংলায় কাস্টমস অফিসে রাখা বাক্সে দরপত্র আবেদন জমা দিতে পারবেন। তাছাড়া আগামী ২৭ থেকে ২৮ অক্টোবর ও ৩১ অক্টোবর থেকে ২ নভেম্বর গাড়ি পরিদর্শন করতে পারবেন নিলামকারীরা। তবে জাতীয় পরিচয় কিংবা পাসপোর্টের ছবিসহ চারদিন আগে গাড়ি পরিদর্শনের পাস নিতে হবে।
[৫] চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের উপ-কমিশনার (নিলাম শাখা) আলী রেজা হায়দার বলেন, এক দশক আগে কারনেট ডি প্যাসেজ সুবিধায় আনা বিলাসবহুল ১১৩টি গাড়ি নিলামে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড। এই গাড়িগুলো অখালাস অবস্থায় বর্তমানে চট্টগ্রাম বন্দরে রয়েছে। আগামী ৩ ও ৪ নভেম্বর বিলাসবহুল গাড়িগুলো নিলামে উঠছে। যেকোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান যথাযথ কাগজপত্র জমা দিয়ে নিলামে অংশ নিতে পারবেন। [৬] অপরদিকে গাড়ি ব্যবসায়ী মোহাম্মদ রোকন উদ্দিন বলেছেন, দীর্ঘদিন বন্দরে পরে থাকার ফলে এ গাড়িগুলোর অনেক ক্ষতিগ্রস্ত বা অনেক ধরনের যন্ত্রাংশ বিনষ্ট হয়ে গেছে। এগুলো ব্যবহারের যোগ্য কি না, তার কোনো নিশ্চয়তা নেই। যার কারণে বারবার নিলাম হওয়ার পরও কেউ কিনে নিতে পারচ্ছে না।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]