• প্রচ্ছদ » » এমন জমিনে দেবদূতেরা জন্মান না


এমন জমিনে দেবদূতেরা জন্মান না

আমাদের নতুন সময় : 17/10/2021

সাইফুদ্দিন আহমেদ নান্নু

আমাদের শৈশবে, কৈশরে এমনকি যৌবনকালেও আমরা আমাদের শহরে, আমাদের মানিকগঞ্জ জেলায় এমন কিছু রাজনীতিক দেখেছি, শিক্ষক দেখেছি, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বকে দেখেছি যাঁরা যেকোনো সাম্প্রদায়িক সংঘাত, সহিংসতা, উত্তেজনার আভাস পেলেই এগিয়ে আসতেন, সাহসের পায়ে ভর করে এসব ঘৃণ্য অসুস্থতার মুখোমুখি দাঁড়িয়ে সবকিছু সামলে নিতেন। তারা মাঠে নামলে, ডাক দিলে সাধারণ, শান্তিপ্রিয় অসাম্প্রদায়িক মানুষেরা তাঁদের পাশে দাঁড়াতেন। ফলে আমাদের জেলায় চোখে পড়ার মতো, আতঙ্ক জাগানোর মতো সাম্প্রদায়িক সংঘাত,সহিংসতা আমার এই ৫৯ বছরের জীবনে দেখিনি। কেবল বাবরি মসজিদ ভাঙার ইস্যুতে অনেকগুলো মন্দিরে হামলা হয়েছিলো, প্রতিমা ভাঙা হয়েছিলো, বাড়িঘরে হামলার মতো বেদনাদায়ক ঘটনা ঘটেছিলো। যার রাশ প্রথম দিন দুপুরের পর থেকেই টেনে ধরেছিলেন আমাদের জনপদের সুস্থ চিন্তার মানুষেরা।
এসব সহিংসতার নেপথ্যে যতোটা না ধর্মীয় ব্যক্তি, সংগঠন জড়িত ছিলো তার চেয়ে বেশি সক্রিয় ছিলো বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মাঝারি স্তরের কিছু দুর্বৃত্ত নেতাকর্মী। সংখ্যাগত এবং মাত্রাগত দিক থেকে সেটাও ছিলো দেশের অন্যান্য জেলার তুলনায় অনেক কম। তাও ওই একবারই, আর কোনোদিন অমন অসুস্থতা মানিকগঞ্জকে গ্রাস করেনি। গত তিন যুগে আমাদের রাজনীতির পচন,পতনটা এমন সর্বগ্রাসী হয়ে ওঠেছে যে, আমাদের সমাজ থেকে, রাজনীতি থেকে ওইসব অসাম্প্রদায়িক, সাহসী মানুষগুলোকে অবহেলা, অবমূল্যায়ন, অপমান,অসম্মান করতে করতে কোণঠাসা করে ফেলেছি। এসব মানুষেরা এখন নেই। যাঁরাও আছেন তাঁরাও গুটিয়ে গেছেন। আর সবকিছু দেখেশুনে তাদের মতো মানুষ হয়ে ওঠার তাগিদও নতুনদের মধ্যে জাগেনি। অথচ তাঁরাই সংকটগুলো দ্রুত টের পেতেন ঘরে বসে না থেকে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মাঠে নেমে বুক চিতিয়ে দাঁড়াতেন। প্রয়োজনে হুংকার দিয়ে, খামোশ বলে সব সামলে নিতেন। কিন্তু ক্ষমতালিপ্সু অসুস্থ রাজনীতি, টাকা, কালো টাকার শক্তি আর চাটুকারিতায় অর্জিত রাজনৈতিক ক্ষমতার প্রবল প্রতাপের সামনে এসব দেবদূতেরা আজ অপাঙক্তেয়। এই শ্যামল, শুভ্র জমিন বন্ধ্যা হয়ে গেছে। যে জমিনে দানবের চাষাবাদ হয়, সে জমিনে দেবদূত জন্মায় না। এই বন্ধ্যাত্ব কেবল মানিকগঞ্জের নয়, ৫৬ হাজার বর্গমাইলের।-ঝধরভঁফফরহ অযসবফ ঘধহহঁ-র ফেসবুক ওয়ালে লেখাটি পড়ুন।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]