• প্রচ্ছদ » » ‘ওরে ও বাঁশিওয়ালা, আমার এ মনের জ্বালা…’ গানটি কুমার বিশ^জিতের সঙ্গে গেয়েছিলেন নায়িকা অনজু ঘোষও


‘ওরে ও বাঁশিওয়ালা, আমার এ মনের জ্বালা…’ গানটি কুমার বিশ^জিতের সঙ্গে গেয়েছিলেন নায়িকা অনজু ঘোষও

আমাদের নতুন সময় : 28/10/2021

ইমরুল শাহেদ: চিত্রনায়িকা অনজু ঘোষ ও কুমার বিশ্বজিতের গাওয়া এই গানটির জনপ্রিয়তা নিয়ে নতুন করে বলার কিছু নেই। এফ কবীর চৌধুরী পরিচালিত ‘নরম গরম’ ছবির এই গানটিও ছবিটিকে বাণিজ্যিক সাফল্য পেতে অনেকখানিই সহায়তা করেছে। এই গানটি এখন অনজু ঘোষের ফেসবুক আইডি থেকে শেয়ার করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। গানটি ইউটিউবে তো আছেই। এক প্রিয়জনের জন্মদিন উপলক্ষে অনজু গানটি পোস্ট দিয়েছেন। এই গানটি থেকেই বোঝা যায় অনজু শুধু একজন সুঅভিনেত্রীই ছিলেন না, তিনি সুকণ্ঠীও ছিলেন। ছবির ডাবিংয়ে যখন তার কণ্ঠ শোনা যেতো, তাতেও ছিলো একটা আবেদন। গান ছিলো তার সাধনা। তিনি একটি ছবির সংগীত পরিচালনাও করেছেন। সেক্ষেত্রে তাকে সহায়তা করেছিলেন প্রয়াত সংগীত পরিচালক ফরিদ আহমেদ। গান অনজুর সাধনার ক্ষেত্র হলেও অভিনেত্রী হিসেবেই তিনি জনপ্রিয়। তার দক্ষ অভিনয়ের সামনে এ দেশের অনেক তারকাই ছিলেন প্রকম্পিত। প্রয়াত পরিচালক কামাল আহমেদ শাবানা ও অনজুকে নিয়ে একটি ছবি শুরু করেছিলেন। কিন্তু অনজুর সঙ্গে এক ফ্রেমে বন্দী হতে কিছুতেই সম্মত হননি শাবানা। এই তারকার গড়িমসির জন্য ছবিটির অনেক দূর শুটিং হয়েও শেষ পর্যন্ত আর সমাপ্ত হয়নি। অনজু সেই সময়েই এই রিপোর্টারকে বলেছিলেন, ‘আমি শাবানা আপার মুখোমুখি হতে চাই ক্যামেরায়। কিন্তু তিনি সেটা চাচ্ছেন না। কেন- আমি জানি না।’ অভিনেত্রী অনজুর অভিনয়ের পাটাতন তৈরি হয়েছে যাত্রামঞ্চ থেকে। চট্টলায় অনজু পরিবারের ছিলো একটি যাত্রা দল। তার বাবা যেমন ছিলেন যাত্রা অভিনেতা, তেমনি তার মা বীনাপানি ঘোষও ছিলেন যাত্রার শিল্পী। স্বভাবতই তিনি পাকা অভিনেত্রী হিসেবে গড়ে উঠেছিলেন। কিন্তু চলচ্চিত্রে তার অভিষেক হয়েছে ‘সওদাগর’ ছবি দিয়ে। ছবিটি ছিলো ফ্যান্টাসী ধারার। এজন্য তিনি অনেক চেষ্টা করেও সামাজিক ঘরানার ছবিতে সফল হতে পারেননি। তার পর্দা ইমেইজও ইতিবাচক ছিলো না।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]