• প্রচ্ছদ » » কে দূর করবে মানুষের রিক্ততা? কে দেবে মানুষকে প্রকৃত শিক্ষা?


কে দূর করবে মানুষের রিক্ততা? কে দেবে মানুষকে প্রকৃত শিক্ষা?

আমাদের নতুন সময় : 02/12/2021

স্বকৃত নোমান

কাশীর রাজকন্যা অম্বা গুরু পরশুরামের কাছে গেলেন মহামহিম ভীষ্মের বিরুদ্ধে নালিশ করতে। পরশুরাম বললেন, ‘দেবী, এতো দুর্গম স্থানে আসার এমন কীসের প্রয়োজন তোমার?’ অম্বা বললেন, ‘ন্যায়ের খোঁজে এসেছি ভগবান। সবাই বলে আপনি অসংখ্য ক্ষত্রিয়ের বিনাশ করেছেন।’ পরশুরাম বললেন, ‘একুশবার এই ধরার ওপর আততায়ী ও দুষ্ট ক্ষত্রিয়দের বিনাশ করেছি, বিধ্বংস করেছি। কিন্তু অবশেষে আমি এই জ্ঞান লাভ করেছি যে, কমুণ্ডল (জলপাত্র) উল্টে দিলেই তার ভেতরের রিক্ততা দূর করা যায় না। তাতে জল ভরে দিলেই তার রিক্ততা দূর হতে পারে। মনুষ্যের হৃদয়ে ন্যায় স্থাপন করলেই অন্যায় দূর হতে পারে।’
এখনো কতো প্রাসঙ্গিক মহাভারতের এই উক্তি। মানুষের ভেতর থেকে অন্যায় দূর করতে হলে তার ভেতরে ভরে দিতে হবে ন্যায়, দিতে হবে প্রকৃত শিক্ষা। তা না দিয়ে মানুষকে বিনাশ করে দেওয়ার মধ্যে সমাধান নেই। সেই বিনাশ থেকে জন্ম নেবে আরেক বিনাশী। ক্রসফায়ার কোনো সমাধান নয়, হত্যার বদলে হত্যাও কোনো সমাধান নয়। সমাধান শিক্ষা, যা করেছিলেন পরশুরাম। কিন্তু এখন তো পরশুরামের মতো কোনো গুরু নেই। সব ‘গুরু’ এখন শিক্ষা বাণিজ্যে ব্যস্ত। কে দূর করবে মানুষের রিক্ততা? কে দেবে মানুষকে প্রকৃত শিক্ষা? দেবে রাষ্ট্র। নাগরিকদের মানবিক ও সংস্কৃতিসম্ভূত শিক্ষায় শিক্ষিত করে তোলার দায় রাষ্ট্রের। জনগণ ন্যায়বান হলেই একটি কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব। লেখক : কথাসাহিত্যিক




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]