যোগাযোগ বিভ্রাট

আমাদের নতুন সময় : 02/12/2021

মো. সামসুল ইসলাম : যোগাযোগ প্রযুক্তির অভাবনীয় উন্নতির যুগে আপনার যোগাযোগ দক্ষতা হতে হবে অসাধারণ। আপনার লেখা বা মুখের ভাষা একটু এদিক ওদিক হয়ে গেলে আপনাকে বিপদে পড়তে হবে। কমিউনিকেশনের ক্লাসে আমরা এ ব্যাপারগুলো প্রায়ই তুলে ধরি। আমাদের দেশে কমিউনিকেশন পেশাজীবী, স্ক্রিপ্ট রাইটার তাদের কম গুরুত্ব দেওয়ায় রাজনৈতিক নেতা, সেলিব্রিটিরা প্রায়ই বিপদে পড়েন। তাদের এমনকি অনেক ভালো কথাও মানুষজন ভুলভাবে ব্যাখ্যা করে। আমি সংক্ষেপে দু’চারটি উদাহরণ দিই। করেকদিন আগে এক মন্ত্রী বোধহয় সবাইকে ভাত কম খাওয়ার কথা বললেন। নেটিজেনরা এতে তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। কারও কারও এরকম লেখাও দেখলাম শেষ পর্যন্ত ভাতের খোঁটাও শুনতে হলো। অথচ ডাক্তাররা কিন্তু হরহামেশাই ভাত কম খেতে বলছেন। ভাত বেশি খাওয়া মোটেই ভালো নয়। থাইল্যান্ড, ফিলিপাইন প্রভৃতি দেশে ভাত খেলেও তা তারা খায় স্বল্প পরিমাণে। অতিরিক্ত কার্বোহাইড্রেট তো শরীরের জন্য ক্ষতিকর। আমি জানি না মন্ত্রী ঠিক কীভাবে কথাটি বলেছেন। কিন্তু মানুষজন বুঝেছে উল্টোটি।
বেশ কিছুদিন আগে আরেক মন্ত্রী বললেন, বাংলাদেশ ঋধপবনড়ড়শ এবং ডযধঃংঅঢ়ঢ় এর মতো ধঢ়ঢ় তৈরি করবে। এ তো ভালো কথা, দেশের জন্য গর্বের কথা। অনেক দেশেই এরকম সোশ্যাল মিডিয়া ধঢ়ঢ় তৈরি করেছে। কিন্তু একটি শব্দের ব্যবহারের কারণে দেশে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা যায়। সম্ভবত ঋধপবনড়ড়শ বা ডযধঃংঅঢ়ঢ় এর ‘বিকল্প’ হিসেবে একথাটি বলা হয়েছিলো। সবাই মনে করেছে যে ঋধপবনড়ড়শ, ডযধঃংঅঢ়ঢ় এসব বন্ধ করে সবাইকে দেশীয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারে বাধ্য করা হবে। কিন্তু এটা কি আদৌ সম্ভব? সে বিতর্কে আর কেউ গেলো না। আবার বাংলাদেশের সঙ্গে প্রতিবেশী দেশের সম্পর্কের উষ্ণতার বর্ণনার ক্ষেত্রে স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্ক এরকম এক রূপক ব্যবহার করে আরেক মন্ত্রী আলোচিত হয়েছেন। নেটিজেনরা এখনো এটা নিয়ে বিতর্ক করেন। অথচ তিনি সম্পর্কের উষ্ণতা বোঝাতে চেয়েছেন মাত্র। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের যে সুযোগ, সুবিধা দেওয়া হয় তা বোঝাতে চা, চপ শিঙ্গাড়ার স্বল্পমূল্যের কথা বলেছিলেন। কিন্তু ব্যাপারটি সঠিকভাবে উপস্থাপনা না করতে পেরে হাসাহাসির পাত্র হয়েছেন। সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে রাজনৈতিক শীর্ষ নেতৃত্বের, সেলিব্রিটিদের যোগাযোগ বিশেষজ্ঞদের শরণাপন্ন হতে হবে। নয়তো এরকম বিভ্রাট ঘটতেই থাকবে।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]