• প্রচ্ছদ » » ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের হলের রুমগুলো শিখিয়েছে কীভাবে সংগ্রাম করে নিজের আশ্রয়টুকু পেতে হয়


ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের হলের রুমগুলো শিখিয়েছে কীভাবে সংগ্রাম করে নিজের আশ্রয়টুকু পেতে হয়

আমাদের নতুন সময় : 05/12/2021

আশরাফুল আলম খোকন

 

আমার প্রিয় স্কুলটির শতবর্ষ হয়ে গেলো ২০১৯ সালে। স্কুলটির গাজীপুরের কাপাসিয়ার ‘তারাগঞ্জ হরেন্দ্র নারায়ণ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়’। এই স্কুলটির কাদামাটির গড়া একজন ১৯৯৬ সালে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পেয়েছিলো প্রাচ্যের অক্সফোর্ড বলে খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। এই বিশ্ববিদ্যালয়টিরও এখন শতবর্ষের উদযাপন চলছে। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে অনেকের নাক উঁচু ভাবও আছে। বিশ্ব রেটিং নিয়ে বিতর্ক আছে। আমি ওইসবের ধারেকাছে নেই। আমি শুধু জানি কাদামাটির মানুষটার মধ্যে প্রাণ দিয়েছে এই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। কী পাইনি এখন থেকে? ক্যাম্পাসে ভবঘুরে হয়ে সমাজের উঁচু ও নিচু স্তরের বন্ধুও পেয়েছি। শিখে নিয়েছি বন্ধুত্বের মাপকাঠি। যা যোগাযোগ ক্ষমতাকে সমৃদ্ধ করেছে। যা দিয়েই এখনো জীবন চালিয়ে নিচ্ছি।
এই বিশ্ববিদ্যালয়ের করিডোর আমাকে বন্ধুত্ব শিখিয়েছে। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের সুবিশাল চত্বরগুলো আমার মানসিকতা ও দৃষ্টিকে প্রসারিত করেছে। অপরাজেয় বাংলা ও সোপার্জিত স্বাধীনতা শিখিয়েছে দেশের জন্য ত্যাগ, ভালোবাসা ও ইতিহাস। মধুর ক্যান্টিন শিখিয়েছে রাজনীতি ও জীবননীতির হালচাল। দিনের পর দিন হলের ক্যান্টিনে খেয়ে শিখেছি মিতব্যয়িতা। হলের রুমগুলো শিখিয়েছে কীভাবে সংগ্রাম করে নিজের আশ্রয়টুকু পেতে হয়। টিএসসি আমাকে শিখিয়েছে সৃজনশীল আড্ডা। মাঝে মাঝে রাতের ক্যাম্পাসের ‘বিকট শব্দ’ আমাকে সাহসী করেছে। ক্যাম্পাসের ক্যান্টিন বয়, বাদাম ও সিগারেট বিক্রেতার জীবন শিখিয়েছে কীভাবে একা পথ চলে স্বাবলম্বী হতে হয়। আর ক্লাসরুম? আমাকে একটি সার্টিফিকেট দিয়েছে। যে সার্টিফিকেট একবারই কাজে লেগেছিলো, জীবনের প্রথম চাকরির সময়। বাকি পথ চলেছি আগের শিক্ষাগুলো দিয়েই, ধন্যবাদ প্রাণের বিশ্ববিদ্যালয়। আরও সহস্র বছর এই সমাজকে আলোকিত করুক।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]