• প্রচ্ছদ » » কথাসাহিত্যিক শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের প্রয়াণ দিবস আজ, তাঁর সাহিত্যকর্মকে ঘিরে ভারতীয় উপমহাদেশে প্রায় পঞ্চাশটি চলচ্চিত্র বিভিন্ন ভাষায় নির্মিত হয়েছে


কথাসাহিত্যিক শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের প্রয়াণ দিবস আজ, তাঁর সাহিত্যকর্মকে ঘিরে ভারতীয় উপমহাদেশে প্রায় পঞ্চাশটি চলচ্চিত্র বিভিন্ন ভাষায় নির্মিত হয়েছে

আমাদের নতুন সময় : 16/01/2022

মোহাম্মাদ হাসান: শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় ছিলেন একজন বাঙালি লেখক, ঔপন্যাসিক, ও গল্পকার। তিনি দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম জনপ্রিয় এবং বাংলা ভাষার সবচেয়ে জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক। ১৮৭৬ সালে ১৫ সেপ্টেম্বর ব্রিটিশ ভারতের প্রেসিডেন্সি বিভাগের হুগলি জেলার দেবানন্দপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তাঁর সাহিত্যকর্মকে ঘিরে ভারতীয় উপমহাদেশে এ পর্যন্ত প্রায় পঞ্চাশটি চলচ্চিত্র বিভিন্ন ভাষায় তৈরি হয়েছে। তাঁর মধ্যে ‘দেবদাস’ উপন্যাসটি বাংলা, হিন্দি এবং তেলুগু ভাষায় আটবার তৈরি হয়। ১৮৯৪ সালে দ্বিতীয় বিভাগে এনট্রান্স পরীক্ষা পাস করে তেজনারায়ণ জুবিলি কলেজে ভর্তি হন। এসময় তিনি তাঁর মাতামহের ছোট ভাই অঘোরনাথের দুই পুত্র সুরেন্দ্রনাথ ও গিরিন্দ্রনাথকে প্রতি রাতে পড়াতেন, তার বিনিময়ে অঘোরনাথ তাঁর কলেজে পড়ার প্রয়োজনীয় অর্থ যোগাতেন। এতদসত্ত্বেও এফএ পরীক্ষার ফি যোগাড় করতে না পারার জন্য পরীক্ষায় বসতে পারেননি তিনি। বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসে অপ্রতিদ্বন্দ্বী জনপ্রিয়তার দরুন তিনি ‘অপরাজেয় কথাশিল্পী’ নামে খ্যাত।
তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯২৩ সালে জগত্তারিণী স্বর্ণপদক পান। এছাড়াও তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ‘ডিলিট’ উপাধি পান ১৯৩৬ সালে। তাঁর অনেক উপন্যাস ভারতবর্ষের প্রধান ভাষাগুলোতে অনূদিত হয়েছে। বড়দিদি (১৯১৩), পরিণীতা (১৯১৪), পল্লীসমাজ (১৯১৬), দেবদাস (১৯১৭), চরিত্রহীন (১৯১৭), শ্রীকান্ত (চারখণ্ডে ১৯১৭-১৯৩৩), দত্তা (১৯১৮), গৃহদাহ (১৯২০), পথের দাবী (১৯২৬), শেষ প্রশ্ন (১৯৩১) ইত্যাদি শরৎচন্দ্র রচিত বিখ্যাত উপন্যাস। উপন্যাসের পাশাপাশি নাটকও লিখেছেন তিনি, এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য- ষোড়শী, রমা, বিরাজ বউ ও বিজয়া। ১৯৩৮ সালে ১৬ জানুয়ারি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন তিনি।


সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]